ঢাকাMonday , 12 December 2022
  1. অপরাধ
  2. অভিনন্দন
  3. অর্থনীতি
  4. আইন ও বিচার
  5. আটক
  6. আত্মহত্যা
  7. আন্তর্জাতিক
  8. আর্থিক সহায়তা
  9. আলোচনা সভা
  10. আহত
  11. উদ্বোধন
  12. এক্সিডেন্ট
  13. ওয়াজ মাহফিল
  14. কৃষি বার্তা
  15. খুন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

হুজুর নামের দানবের হাতে শিশু নির্যাতিত সাতকানিয়া

Link Copied!

হুজুর নামের দানবের হাতে শিশু নির্যাতিত সাতকানিয়া

কামরুল ইসলাম

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার সাতকানিয়ায় উপজেলার এক মাদ্রাসা ছাত্র কে হুজুর নামের এক দানব শারীরিক নির্যাতন করছে বলে অভিযোগ করেছে অভিবাভক।

বিস্তারিত জানতে গিয়ে জানাযায় সাতকানিয়া উপজেলায় মাদ্রাসা শিক্ষকের নির্মম বেত্রাঘাতে হেফজখানার এক ছাত্র গুরুতর জখম হয়েছে। আহত ছাত্রের নাম হাবিবুর রহমান বাবলু (১০)।

তাকে বর্তমানে গুরুতর অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অভিযুক্ত শিক্ষকের নাম মাওলানা আহমদ শফি।

বৃহস্পতিবার ৮-১২-২০২২ ইংরেজি উপজেলার ছদাহা আয়শা ট্রাস্ট এতিমখানা ও হেফজখানায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় আহত ছাত্রের মা হাসিনা আক্তার বাদী হয়ে শনিবার রাতে সাতকানিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। আহত ছাত্র হাবিবুর রহমান বাবলু ছদাহা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড মাইজপাড়ার সৌদি আরব প্রবাসী আবদুর রশিদের ছেলে।

এ ব্যাপারে ছাত্রটির মা হাসিনা আক্তার বলেন, “এখন থেকে প্রায় ২ মাস আগে আমার ছেলে বাবলুকে আয়েশা ট্রাস্ট এতিমখানা ও হেফজখানায় হেফজ বিভাগে ভর্তি করাই। ভর্তির পর থেকে সে পুরো সপ্তাহ মাদ্রাসায় থাকত। প্রতি সপ্তাহের বৃহস্পতিবার বাড়ি আসে। গত বৃহস্পতিবার (৮ ডিসেম্বর) বাড়ি না আসায় হুজুরকে ফোন দিলে তিনি আমাকে বলেন, ছেলে পড়া শেষ করতে পারেনি। তাই এ সপ্তাহে সে বাড়ি যাবে না কিন্তু ওইদিন বিকেলে মাদ্রাসার দেওয়াল টপকিয়ে পালিয়ে সে বাড়ি চলে আসে। তখন দেখি হুজুরের নির্মম বেত্রাঘাতে আমার ছেলের পুরো শরীর ক্ষতবিক্ষত হয়েছে। ক্ষত চিহ্নগুলো পচতে শুরু করেছে। যন্ত্রণায় সে ছটফট করছিল। পরে তাকে সাতকানিয়া হাসপাতালে নিয়ে যাই। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য গতকাল তাকে চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।”

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক ও ছদাহা আয়শা ইসলামিয়া ট্রাস্ট এতিমখানা ও হেফজখানার পরিচালক মাওলানা আহমদ শফি মারধরের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, “ছেলেটি পড়ালেখায় অমনোযোগী ও ফাঁকি দিচ্ছে। এজন্য মারধর করেছি। তবে মারধরের পরিমাণটা একটু বেশি হয়ে গেছে। এজন্য ছাত্রের মায়ের কাছে মারধরের জন্য ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়েছি।”

সাতকানিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে কর্মরত চিকিৎসক ডা. এ পি বণিক বলেন, “বেত্রাঘাতে ছেলেটির শরীরে অনেক বেশি জখম হয়েছে। এজন্য তাকে চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।”

সাতকানিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তারেক মোহাম্মদ আবদুল হান্নান বলেন, “শিক্ষকের নির্মম বেত্রাঘাতে হেফজ বিভাগের ছাত্র আহত হওয়ার ঘটনায় ওই ছাত্রের মা বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় শিক্ষক মাওলানা আহমদ শফি ও তার সহযোগী মো. লোকমান নামে দুইজনকে আসামী করা হয়েছে। পুলিশ আসামীদের গ্রেফতারে চেষ্টা চালাচ্ছে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।